শিক্ষার্থীদের উদ্যেশে ডিসি সাতক্ষীরা বলেন : মুক্তিযুদ্ধ, অর্থনীতি, দেশের ইতিহাস ও ঐতিহ্য বিষয়ক বই পড়তে হবে

সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধি(রনি) : সাতক্ষীরা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে ‘মুজিববর্ষ : তারুণ্যের ভাবনা’ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার অনুষ্ঠিত এ সভার শুরুতে জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্র সৃষ্টিতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মত্যাগ, স্বাধীনতা যুদ্ধে ৩০ লাখ শহিদ, ২ লাখ সম্ভ্রমহারা মা-বোন ও বীর মুক্তিযোদ্ধাদের শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন।

পরে তিনি শিক্ষার্থীদের কাছে জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী স্মরণীয় করে রাখতে সরকার ঘোষিত মুজিব বর্ষ নিয়ে শিক্ষার্থীদের ভাবনা, ছাত্র-ছাত্রীরা নিজেদের কোথায় দেখতে চায়, সাতক্ষীরা জেলাকে কেমন দেখতে চায়, সর্বোপরি কেমন বাংলাদেশ প্রত্যাশা করে তা জানতে চান।

এ সময় শিক্ষার্থীরা নিজেদের মতামত তুলে ধরে বলে, আগামীর বাংলাদেশ হবে দুর্নীতি, মাদক, সন্ত্রাস, বাল্যবিবাহ, শিশুশ্রম, ভিক্ষুক ও সাইবার ক্রাইম মুক্ত। যেখানে থাকবে না সাম্প্রদায়িকতা, থাকবে না কোন বেকারত্ব, সড়ক দুর্ঘটনায় হারাবে না কোন প্রাণ।

মুক্তচিন্তা ও মুক্তবুদ্ধির বিকাশ ঘটবে, বৈষম্যহীন শিক্ষাব্যবস্থা গড়ে উঠবে। প্রতিষ্ঠিত হবে ন্যায় বিচার ও আইনের শাসন। পরিকল্পিত শিল্পায়ন ও নগরায়ন হবে, বৈদেশিক বিনিয়োগ বৃদ্ধি পাবে। রক্ষা পাবে প্রাকৃতিক পরিবেশ, গড়ে উঠবে সুখী ও সমৃদ্ধ জাতিরপিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ।

সভায় জেলা প্রশাসক ছাত্রছাত্রীদের উন্নত মানসিকতা তৈরি ও বড় স্বপ্ন দেখার পরামর্শ দেন।
তিনি বলেন, যে বড় স্বপ্ন দেখতে পারে সে পরিশ্রম করতে পারে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন ছিল তিনি বাংলাদেশ স্বাধীন করবেন, এজন্য তিনি দিনের পর দিন জেলখানায় কষ্ট করতে পেরেছেন।

জেলা প্রশাসক ছাত্রছাত্রীদের মুক্তিযুদ্ধের চেতনা অন্তরে ধারণের আহবান জানিয়ে বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান একটি শক্তিশালী পাকিস্তানি জান্তার হাত থেকে এ দেশের স্বাধীনতা এনে দিতে পেরেছেন শুধুমাত্র দেশপ্রেমের কারণে। তাই তরুণদেরও দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হতে হবে।

জেলা প্রশাসক ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে বলেন, একজন ভালো মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে হলে পড়তে হবে, জানতে হবে। না পড়লে কখনো দেশপ্রেমিক হওয়া যাবে না। মুক্তিযুদ্ধ, অর্থনীতি, দেশের ইতিহাস ও ঐতিহ্য বিষয়ক বই পড়তে হবে। ধর্মীয় উগ্রবাদ ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে অবস্থান নিতে হবে, নিজেদেরকে নেতৃত্বের জায়গায় নিয়ে যেতে হবে।

এ সময় জেলা প্রশাসক পরিবেশ দূষণের ব্যাপারে সবাইকে সচেতন হওয়ার আহবান জানান।
সভায় পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষসহ শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

পোষ্টটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *